অনুষ্ঠীত হলো মজলিস খোদ্দামুল আহমদীয়া চেক প্রজাতন্ত্রের দ্বিতীয় বাৎসরিক সম্মেলন


উযায়ের আহমদ, সদর, মজলিস খোদ্দামুল আহমদীয়া, চেক প্রজাতন্ত্র

গত ২১ ও ২২ অক্টোবর তারিখে মজলিস খোদ্দামুল আহমদীয়া চেক প্রজাতন্ত্র তাঁদের দ্বিতীয় বাৎসরিক সম্মেলনের আয়োজন করে। সমগ্র দেশ থেকে ট্রেন এবং গাড়িযোগে খোদ্দামরা ২০শে অক্টোবর সন্ধ্যায় রাজধানী প্রাগে একত্রিত হয়; এমনকি কেউ কেউ ৪০০ কি.মি. দূরের শহর থেকেও আগমন করেন।
এবারের ইজতেমার মূল প্রতিপাদ্য ছিলো ‘আল্লাহ্‌’।
চেক প্রজাতন্ত্র পৃথিবীর অন্যতম নাস্তিক দেশ হিসেবে পরিচিত; তাই এই প্রতিপাদ্য নির্বাচনে আমাদের মূল লক্ষ্য ছিল – জগতের কাছে খোদার পরিচয় তুলে ধরতে খোদ্দামদের দায়িত্ব গ্রহণে সহায়তা করা।
বাজামাত তাহাজ্জুদ ও পবিত্রে কুরআন হতে দরসের মাধ্যমে প্রথম দিন আরম্ভ হয়। উদ্বোধনী অধিবেশনে প্রতিশ্রুত সংস্কারক (মুসলেহ মওউদ) হযরত মির্যা বশীর উদ্দীন মাহমুদ আহমদ (রা.) – এর পুস্তক ‘খোদার অস্তিত্বের ১০টি প্রমাণ’ থেকে মাওলানা কাশিফ জানজুয়া সাহেব কিছু গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্ট তুলে ধরেন।
অতঃপর বিভিন্ন শিক্ষামূলক ও খেলাধুলার প্রতিযোগিতা আয়োজন করা হয়।
সন্ধ্যায় – রিভিউ অব রিলিজিওনস ম্যাগাজিন এর আল্লাহ্‌র অস্তিত্ত্ব বিষয়ক নিয়মিত অনুষ্ঠান ‘The Existence Project’ এর সাথে সমন্বয় করে একটি ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয় যেখানে উক্ত প্রজেক্ট এর সম্পাদক সাবাহাত আলী সাহেব যুক্তরাষ্ট্রের সিলিকন ভ্যালী থেকে খোদ্দামদের সাথে যুক্ত হন। অনুষ্ঠানে আলোচনার বিষয়বস্তু ছিল খোদার নৈকট্য অর্জন এবং আমাদের চারপাশের অন্যদের অনুপ্রাণিত করতে প্রতিশ্রুত মসীহ্‌ এবং তাঁর খলীফাগণ কর্তৃক পুনরুজ্জীবিত সত্যিকার ইসলামের পথে চলার ক্ষেত্রে আমাদের কি দায়িত্ব রয়েছে। ।
দ্বিতীয় দিনেরও সূচনা হয় তাহাজ্জুদ নামাজ ও কুরআনের দরসের মাধ্যমে।
পুরষ্কার বিতরণী পর্ব শেষে, মজলিস খোদ্দামুল আহমদীয়া, চেক প্রজাতন্ত্রের প্রধান সমাপনী বক্তব্য প্রদান করেন। মজলিস খোদ্দামুল আহমদীয়া ইউকে ২০২৩ এর ইজতেমায় হুযূর (আই.) এর বক্তব্য নিয়ে আলোচনা হয়। যেখানে নাস্তিকতা এবং খোদাহীনতার ক্রমবর্ধমান জোয়ারের বিরুদ্ধে দাঁড়ানো যে আমাদের দায়িত্ব ও কর্তব্য তা প্রিয় খলীফা আমাদের স্মরণ করিয়েছিলেন।

আল্‌ হাকাম (https://www.alhakam.org/majlis-khuddam-ul-ahmadiyya-czech-republic-holds-its-second-ijtema/)