লাজনা ইমাইল্লাহ্ কানাডা’র আন্তঃধর্মীয় সংলাপের আয়োজন


নাদিরা মাহমুদ, সদর, লাজনা ইমাইল্লাহ্ কানাডা

গত ১৯শে নভেম্বর ২০২৩, লাজনা ইমাইল্লাহ্ কানাডা বিভিন্ন ধর্মালম্বী নারীদের অংশগ্রহণে “বর্তমান সমাজে আমার পবিত্র গ্রন্থের প্রাসঙ্গিকতা” নামক এক আলোচনা সভার আয়োজন করেন।
অন্টারিওর ভন শহরে অবস্থিত ‘আইওয়ান-এ-তাহির’-এ অনুষ্ঠিত এই আলোচনা সভায় ৬০ জন অ-আহমদী নারী সহ সর্বমোট ২৪২ জন নারী অংশগ্রহণ করেন।
সভার শুরুতে পবিত্র কুরআন তেলাওয়াত ও পরে সংক্ষিপ্ত স্বাগত বক্তব্য এবং হযরত মির্যা মসরূর আহমদ (আই.) খলীফাতুল মসীহ্ আল্‌ খামেস-এর একটি ভিডিও ক্লিপ দেখানো হয়।
এরপরে বিভিন্ন বক্তা বিশ্বের প্রধান পাঁচটি ধর্ম: খ্রিস্টান, ইসলাম, ইহুদি, হিন্দু এবং শিখ – ধর্মে তাদের পবিত্র ধর্মগ্রন্থের শিক্ষা আজকের সমাজে কতটা কার্যকর সে বিষয়ে আলোচনা করেন। প্রতি বক্তার প্রজ্ঞাপূর্ণ বক্তব্যের একটিই একক উপসংহার – “আমাদের সমস্ত ধর্মবিশ্বাসের মধ্যে বিরোধিতার চাইতে পারস্পরিক মিলই বেশী” সুতরাং এ কারণেও আমাদের একত্রিত হওয়া উচিত।
আলোচনা সভায় প্রবেশের সময় রেজিস্ট্রেশন টিম অতিথিদের অভ্যর্থনা জানায় এবং বই উপহার দেয়। ‘আইওয়ান-এ-তাহির’-কে জামা’তের বিভিন্ন বুথ ও ব্যানার দিয়ে সুসজ্জিত করা হয়। যার মধ্যে এমটিএ, দ্য রিভিউ অফ রিলিজিয়নস, ইসলামে নারীর ভূমিকা এবং ইসলামিক ক্যালিওগ্রাফি উল্লেখযোগ্য।
প্রত্যেক ধর্মবিশ্বাসের বক্তারা তাদের নিজ নিজ বক্তৃতা শেষে আগত অতিথিদের সাথে প্রশ্নোত্তর পর্বে অংশগ্রহণ করেন।
সমাপনী বক্তব্য রাখেন লাজনা ইমাইল্লাহ্ কানাডারা সদর নাদিরা মাহমুদ সাহেবা। তিনি বিনীতভাবে উপস্থিত অতিথীদের স্মরণ করিয়ে দেন যে, “সর্বশক্তিমান প্রভু প্রতিপালক সমগ্র মানবতাকে একক হিসাবে সৃষ্টি করেছেন”। অনুষ্ঠান শেষে অতিথিবৃন্দ দোয়ায় অংশগ্রহণ করেন।
অনেক অতিথি বলেন এ আন্তঃধর্মীয় সম্মেলন – আহমদীয়া মুসলিম জামা’তের একটি শিক্ষামূলক আয়োজন – যেখানে তারা প্রথমবারের মতো পক্ষপাতিত্বহীন ভাবে বিভিন্ন ধর্মাবলম্বীদের কাছ থেকে তাদের বক্তব্য শুনতে পেয়েছেন।
এক অতিথি আরও জানান, তিনি একে অপরের দৃষ্টিভঙ্গির প্রতি পারস্পরিক শ্রদ্ধাবোধ দেখে আবেগপ্রবণ হয়ে পড়েন।

আল্‌ হাকাম (https://www.alhakam.org/lajna-imaillah-canada-hosts-national-interfaith-symposium/)