“ডাইন ফর এ ডিফারেন্স” হিউম্যানিটি ফার্স্ট যুক্তরাজ্যে আয়োজিত এক প্রীতি নৈশভোজ


গত ২৫শে জানুয়ারী ২০২৪, হিউম্যানিটি ফার্স্ট যুক্তরাজ্যে ওয়ান্ডসওয়ার্থ টাউন হল, লন্ডনে “ডাইন ফর এ ডিফারেন্স” শীর্ষক এক প্রীতি নৈশভোজের আয়োজন করেন।

আনুমানিক সন্ধ্যা ৭:৪০ মিনিটে অনুষ্ঠানের উপস্থাপক হামজা ইলিয়াস সাহেব এবং সাবাহউদ্দিন আহমেদী সাহেব এ অনুষ্ঠানের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য উপস্থাপনের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সূচনা করেন। এ আলোচনায় বর্তমান বিশ্বের সার্বিক পরিস্থিতি বিশ্লেষণ এবং উন্নয়নের জন্য কি করা প্রয়োজন তার উপর আলোকপাত করা হয়।

এরপর হিউম্যানিটি ফার্স্ট-এর উদ্দেশ্য এবং এর সম্ভাবনা বিষয়ক একটি ছোট ভিডিও প্রদর্শন করা হয়।

এরপর আইভরি কোস্টে হিউম্যানিটি ফার্স্ট-এর অর্থায়নে প্রতিষ্ঠিত হাসপাতাল এবং এই ধরনের প্রতিষ্ঠানের প্রয়োজনীয়তা সম্পর্কে অংশগ্রহণকারীদের দৃষ্টি আকর্ষণ করা হয়। ডাইরেক্টর ফজল আহমদ সাহেব হিউম্যানিটি ফার্স্ট এর কার্যক্রম সম্পর্কে আলোকপাত করেন। এরপর হিউম্যানিটি ফার্স্ট ইউকে-এর ফুড ব্যাঙ্ক প্রকল্প এবং এর প্রভাব সম্পর্কে একটি ছোট ভিডিও প্রদর্শন করা হয়। পরে আরেক পরিচালক নাজম খান সাহেব হিউম্যানিটি ফার্স্ট ইউকে-র খাদ্য ব্যাঙ্কগুলো কীভাবে তাদের ত্রাণ তৎপরতা চালাচ্ছে সেই বিষয়ে আলোচনা করেন।

এরপর আলোচনা বর্তমান গাজা পরিস্থিতির দিকে মোড় নেয় এবং হিউম্যানিটি ফার্স্ট কর্তৃক বিশুদ্ধ পানির ব্যবস্থাপনার উপর একটি ভিডিও উপস্থাপন করা হয় এবং গাজাবাসীর গৃহস্থলী কাজে প্রয়োজনীয় পানির ব্যবস্থা করতে আরও বেশী তহবিল প্রয়োজন বলেও উল্লেখ করা হয়।

হিউম্যানিটি ফার্স্ট যুক্তরাজ্যের চেয়ারম্যান ডা: আজিজ হাফিজ সাহেব, উপস্থিত অতিথিদের সংস্থার বর্তমান পরিষেবা গুলো সম্পর্কে অবহিত করেন। বেশীরভাগ হাসপাতাল ধ্বংস হয়ে যাওয়ার ফলে গৃহহীন এবং গর্ভবতী মহিলারা যে সকল জটিলতার সম্মুখীন হয়েছেন তার এক পরিসংখ্যান তুলে ধরে ডা: আজিজ সাহেব বলেন, হিউম্যানিটি ফার্স্ট-এর কাজে গতবার গাজা সফরে যা দেখেছেন তা তিনি তার কর্মজীবনে আগে কখনো দেখেননি। ক্যাম্পে বসবাসকারীদের পানীয় জল নেই; বর্তমানে সরবরাহকৃত জল ধোয়া এবং পরিষ্কার করার উপযুক্ত। বর্তমানে রাফাহ্ শিবিরের গাজার জনসংখ্যার ৮০ শতাংশ বসবাস করছেন, তারা বুকের সংক্রমণ ও কাশিতে আক্রান্ত যার চিকিৎসা করা সম্ভব হচ্ছে না কেননা তাদের বেশীরভাগ ডাক্তার মৃত এবং সিংহভাগ ওষুধ মিশরের পরিবহন জটিলতায় আটকে আছে।

এরপর ছিলো হিউম্যানিটি ফার্স্টের বিভিন্ন কার্যক্রমের উপর একটি কুইজ, সেখানে অতিথিরা অত্যন্ত আগ্রহের সাথে অংশগ্রহণ করেন।

এরপর হিউম্যানিটি ফার্স্ট-এর গুরুত্বের উপর প্রদর্শিত ভিডিও তে হযরত আমীরুল মুমিনীন, মির্যা মসরূর আহমদ (আই.)-এর বাণী দেখানো হয়।

অনুষ্ঠানের শেষে আহমদীয়া মুসলিম জামা’ত যুক্তরাজ্যের সভাপতি রফিক হায়াত সাহেব কুরআনের আলোকে দান ও ত্যাগের মাধ্যমে দুস্থ এবং সুবিধা বঞ্চিত মানুষের পাশে দাঁড়ানোর গুরুত্ব ও প্রয়োজনীয়তা উপস্থাপন করেন।

জনাব রফিক হায়াত এরপর হিউম্যানিটি ফার্স্ট-এর সকল স্বেচ্ছাসেবকদের ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন এবং সবাইকে অনুরোধ করেন তাদের প্রার্থনায় স্মরণ রাখতে এবং আর্থিক ত্যাগের মাধ্যমে সহযোগিতা করতে।

আল্‌ হাকাম (https://www.alhakam.org/humanity-first-uk-hosts-a-charity-dinner-called-dine-for-a-difference/)