আহ্‌মদীয়া মুসলিম জামা’ত, নাইজেরিয়ার ৬৯তম সালানা জলসার আয়োজন


মুহাম্মদুল-ফরিদ আজিমোতি, নাইজেরিয়া প্রতিনিধি, আল্‌ হাকাম

ইলারো, ওগুন স্টেট এ অবস্থিত জামিয়া আহ্‌মদীয়া’র কনফারেন্স গ্রাউন্ড-এ গত ২২-২৪ ডিসেম্বর ২০২৩ তারিখে আহ্‌মদীয়া মুসলিম জামা’ত, নাইজেরিয়া, ৬৯তম সালানা জলসার আয়োজন করে। , কয়েক সপ্তাহ আগে থেকে জলসা গাহ্‌ তৈরীতে ব্যাপক প্রস্তুতি শুরু হয় এবং নিকট ও দুরবর্তী বিভিন্ন শহর থেকে মানুষ এতে অংশগ্রহণ করে। এবারের জলসার প্রতিপাদ্য বিষয় ছিল “তাকওয়া: ন্যায় ও শান্তির পথ”।
জলসা কার্যক্রমের মধ্যে ছিল জুমুআর নামাজ, আসরের নামাজ। অতঃপর এমটি-এর মাধ্যমে সরাসরি সম্প্রচারিত আমীরুল মুমিনীন হযরত মির্যা মসরূর আহমদ (আই.)-এর জুমুআর খুতবা শুনার পর মধ্যাহ্নভোজ।
আহ্‌মদীয়া মুসলিম জামা’ত নাইজেরিয়ার আমীর আলহাজ্জ্ব বার আলতোয়ে ফলরুনসো আজিজা সাহেব এর পতাকা উত্তোলন ও দোয়ার মধ্য দিয়ে জলসা কার্যক্রম শুরু হয়।
প্রথম অধিবেশন শুরু হয় পবিত্র কুরআন থেকে তেলাওয়াত, ও একটি আরবী কাসিদাহ্‌ আবৃত্তির মাধ্যমে। আমীর সাহেব তার উদ্বোধনী ভাষণের পূর্বে হযরত মির্যা মসরূর আহমদ (আই.)খলীফাতুল মসীহ্‌ আল্‌ খামেস-এর একটি বিশেষ বাণী পাঠ করে শোনান।
আবদুল ওয়ায়েজ আপুয়িন সাহেবের “খিলাফত-এ-আহ্‌মদীয়া: আগামী দিনের ন্যায় ও শান্তির অগ্রদূত ” শীর্ষক বক্তৃতাটি ইওরুবা এবং হাউসা ভাষায় অনুবাদ করা হয়েছিল।
পরদিন আহ্‌মদীয়া মুসলিম জামা’ত নাইজেরিয়ার আমীর সাহেব সভাপতিত্বে অধিবেশন শুরু হয়। পবিত্র কুরআন থেকে তেলাওয়াত এবং কাসিদাহ্‌ আবৃত্তির পর আবদুল কাহহার ওলোওনমি সাহেব এবং সৈয়দ আতহার মাহমুদ সাহেবের দুটি বক্তৃতা ছিল। বক্তৃতা গুলোর মধ্যে একটি উর্দু কবিতার জন্যও কয়েক মিনিট বিরতি ছিল।
পরে শিক্ষা ক্ষেত্রে অবদানের জন্য বার্ষিক মেধা পুরস্কার বিতরণ করা হয়।
দ্বিতীয় অধিবেশনে বেশ কয়েকজন বিশিষ্ট ব্যক্তি উপস্থিত ছিলেন, যাদের মধ্যে সরকারি কর্মকর্তা, স্থানীয় গোত্রপতি, শিক্ষাবিদ, সম্প্রদায়ের প্রতিনিধিসহ যুক্তরাজ্য এবং অন্যান্য প্রতিবেশী দেশগুলির প্রতিনিধি । বিশিষ্ট ব্যক্তির কয়েকজনকে মঞ্চে কিছু বলার জন্য আমন্ত্রণ জানানো হয় এবং অন্যান্যদের নাম উল্লেখ করে ধন্যবাদজ্ঞাপন করা হয়। দোয়ার মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘটে, এরপর আমন্ত্রিত অতিথিবৃন্দ প্রদর্শনী পরিদর্শন করেন।
পবিত্র কুরআন তেলাওয়াত ও কাসিদাহ্‌ আবৃত্তির মধ্য দিয়ে তৃতীয় অধিবেশনের শুরু হয়। এরপর নাঈম আহমদ আবদুর রহীম সাহেব এবং রাজা আতহার কুদুস সাহেবের দুটি বক্তৃতা ছিল।
প্রশ্নোত্তর পর্ব ও নৈশভোজের মধ্য দিয়ে শেষ হয় দ্বিতীয় দিন।
রোববার ফজরের নামাজের পরপরই চতুর্থ ও শেষ অধিবেশন শুরু হয়। পবিত্র কুরআন থেকে তেলাওয়াত এবং একটি কাসিদাহ্‌ আবৃত্তির পর মজলিস খুদ্দাম-উল-আহ্‌মদীয়া নাইজেরিয়ার সদর আব্দুর রকিব আকিনয়েমি সাহেব, “সোশ্যাল মিডিয়া: সমাজের উপর এর উপকারিতা এবং প্রতিকূল প্রভাব” বিষয়ে বক্তৃতা করেন।
আহ্‌মদীয়া মুসলিম জামা’ত নাইজেরিয়ার আমির সমাপনী বক্তব্য ও দোয়ার মাধ্যমে জলসা শেষ হয়।
এ বছর প্রবর্তিত অনেক নতুন জিনিসের মধ্যে ছিল জলসা রেডিও কর্তৃক তিনটি ভিন্ন ভাষায় (ইয়োরুবা, হাউসা এবং এতসাকো) কার্যধারার সরাসরি অনুবাদ।
সালানা জলসা নাইজেরিয়া ২০২৩-এ ৫৯৪০ জন অতিথি সহ মোট উপস্থিতি ছিল ৩০৩৫৭ জন।

আল্‌ হাকাম (https://www.alhakam.org/69th-jalsa-salana-held-in-nigeria/)